সন্ধ্যামালতী

0
17
সন্ধ্যামালতী একটি ঝোপজাতীয় সপুষ্পক ঝোলজাতীয় বীরুৎ। এর বৈজ্ঞানিক নাম Mirabilis jalapa। এই গাছ ১.৫ মিটার পর্যন্ত উঁচু হতে পারে ও এদের মূল কন্দাল বিশিষ্ট, কান্ড মসৃণ অথবা কিঞ্চিৎ রোমশ, পর্বগুলো স্ফীত হয়। পাতা দেখতে ডিম্বাকৃতি থেকে উপবৃত্তাকার হয়। পাতার দৈর্ঘ্য ৫ থেকে ১২সেমি ও প্রস্ত ২ থেকে ৬ সেমি। মার্চ ও মে মাস পর্যন্ত ফুল ফোটে এবং আগষ্ট থেকে নভেম্বর মাসের মধ্যে বীজ হয়। এই গাছ বাংলাদেশের সর্বত্র পাওয়া যায়। সন্ধ্যামালতী গাছের ঔষধি গুণাগুণ রয়েছে।

চাষ পদ্ধতিঃ 

সন্ধ্যামালতী গাছ চাষের জন্য রোদযুক্ত জায়গা ভালো। তবে রোদে পাতা শুকিয়ে যায়, তারপরে সন্ধ্যার দিকে আবার সতেজ হয়, যখন দিনের তাপমাত্রা কমতে শুরু করে এবং সূর্য ডুবে যায়। শীতকালে এটি গাছের জন্য উপযুক্ত না, প্রচুর শীত ও তুষারে গাছ মরে যায়। তবে বসন্তকালে সন্ধ্যামালতী চাষের জন্য উপযুক্ত সময়। এর বীজ শুকিয়ে গেলে নিজে থেকে ঝরে পড়ে ও বাগানে ছড়িয়ে যায়। অনেকে বলে বা মনে করেন যে বীজ রোপণের আগে ভিজিয়ে রাখতে হবে, তবে এটির খুব একটা প্রয়োজন নেই। এই ফুলের গাছ বৃদ্ধির জন্য উপযুক্ত পরিবেশ হলো খুব বেশি রোদ বা ছায়াযুক্ত স্থান নয়। রোদ ও আংশিক ছায়াযুক্ত স্থানে গাছটি বৃদ্ধি পায় সহজে। গাছ লাগানোর জমি তৈরি করার প্রথমে মাটি কোদাল দিয়ে কুপিয়ে ঝুরঝুরে করতে হবে। মাটিতে অম্লের মাত্রা যেনো কম থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।এর বীজ ১০ সেন্টিমিটার গভীরতায় স্থাপন করতে হবে। এটি সাধারণত ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে মে মাস পর্যন্ত বপন করার জন্য উপযুক্ত সময় হয়। ১৮ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রায় বীজগুলি দ্রুত অঙ্কুরিত হয়।

উপকারিতাঃ
১। সন্ধ্যামালতী পাতার রস লাগালে আগুনে পোড়ায় উপকার পাওয়া যায়।
২। সন্ধ্যামালতীর পাতার রস খেলে কাশি দ্রুত সেরে যায়।
৩। শরীরের কোন স্থানে দাদ হলে সেই ক্ষত স্থানে সন্ধ্যামালতী ফুলের রস লাগালে দাদ দ্রুত সেরে যায়।
৪। কানে শূলের ব্যথা হলে সন্ধ্যামালতী ফুলের রস হালকা গরম করে কানে দিলে উপকার পাওয়া যায়।
৫। সন্ধ্যামালতীর শিকড় সিদ্ধ করে এই ক্বাথ খেলে পেটের ব্যথায় উপকার পাওয়া যায়।
৬। সন্ধ্যামালতীর শিকড় সিদ্ধ করে এই ক্বাথ খেলে শোথ রোগ ভালো হয়।

অনলাইনে গাছপালা কোথায় পাওয়া যায়ঃ

 

নার্সারির পাসাপাসি গাছপালা কিনতে পারবেন এখন অনলাইনে ।গাছপালা কিনতে ভিজিট করুন নিচে দেয়া নার্সারী লেখার উপর এবং অর্ডার করতে পারেন দেশের যেকোন প্রান্ত থেকেঃ